চাকা না ঘুরলেও জ্বালানি বিল ঠিকই উত্তোলন করছেন সমাজ সেবা কর্মকর্তা !

নির্বাচিত খবর নীলফামারী জেলা নীলফামারী সদর শিরোনাম শীর্ষ খবর সারাদেশ


নীলফামারী প্রতিনিধি: গাড়ির চাকা না ঘুরলেও জ্বালানি(তেল) বাবদ টাকা উত্তোলন করে পকেটস্থ করছেন নীলফামারী সদর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা গোলাম রব্বানী।
গেল এক বছরের মোটর সাইকেলের জ্বালানি বাবদ ৩৯হাজার টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেছেন তিনি। শুধু জ্বালানি নয় কম্পিউটার ও আনুসাঙ্গিক এবং অন্যান্য মনিহারী খাতে টাকা উত্তোলন করে নয়ছয় করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গেল বছরের পহেলা জুলাই নীলফামারী সদর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন গোলাম রব্বানী।
অফিসের সরকারী মোটর সাইকেল যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে না চললেও গেল বছরের জুলাই থেকে চলতি বছরের জুন পর্যন্ত জ্বালানি বাবদ ৩৯হাজার টাকা উত্তোলন করে পকেটস্থ করেছেন তিনি।
এছাড়া অফিসের চারটি কম্পিউটারের মধ্যে দুটি নষ্ট হলেও চারটির সামগ্রী বিল ৩৪হাজার ৫’শ টাকা, কম্পিউটার ও আনুসাঙ্গিক খাতে ১৫হাজার এবং অন্যান্য মনিহারী খাতে ১লাখ ৫হাজার টাকা উত্তোলন করে নাম মাত্র খরচ করার অভিযোগ রয়েছে।
একই অফিসের একাধিক কর্মী অভিযোগ করেন, হয়রানী ও হেনস্থা করার পাশাপাশি কর্মীদের সাথে অসৌজন্য মুলক আচরণ ও খারাপ ব্যবহার করেন থাকেন তিনি।
এদিকে করোনা কালীন সময়ে জাতীয় সমাজ কল্যাণ পরিষদ থেকে দরিদ্রদের মাঝে ত্রাণের জন্য দুই লাখ টাকা বিতরণ নিয়েও অস্বচ্ছতার অভিযোগ উঠেছে। ত্রাণ বিতরণে ইউনিয়ন পরিষদের সাথে সমন্বয় করার কথা থাকলেও সেটি না করে নিজের পছন্দে ত্রাণের জন্য টাকা বিতরণ করেন তিনি।
সংগলশী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কাজী মোস্তাফিজার রহমান বলেন, এ বিষয়ে আমার সাথে কোন সমন্বয় বা পরামর্শ করা তো দুরের কথা সমাজ সেবা কার্যালয় থেকে ইউনিয়নে কাউকে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে কিনা সেটি জানা নেই। একই কথা বলেছেন কুন্দপুকুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী চৌধুরীও।
এ বিষয়ে সদর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা গোলাম রব্বানী বলেন, আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ ছড়ানো হচ্ছে তা সঠিক নয়। ভালো কাজ করতে গিয়ে কিছু মানুষ এমন বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন।
তবে মোটর সাইকেলের জ্বালানি বাবদ ১৫হাজার টাকা উত্তোলন করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বিভিন্ন জনের মোটরসাইকেল ব্যবহার করায় তাদের দিতে হয়েছে এ সব টাকা। দ্রুত মেরামত করে অফিসের মোটর সাইকেলটি আবারো ব্যবহার করা হবে বলে জানান তিনি।
যোগাযোগ করা হলে সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোশাররফ হোসেন, এ রকম বিষয় আমার জানা নেই, তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। তবে তিনি বলেন, গাড়ি না চললে টাকা উত্তোলন যথার্থ নয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।