টানা ভারী বৃষ্টিতে জলাবদ্ধ জলঢাকা পৌরবাসী

জলঢাকা নির্বাচিত খবর শিরোনাম শীর্ষ খবর সারাদেশ

স্টাফ রিপোর্টারঃ
নীলফামারীর জলঢাকা পৌরবাসীর প্রধান সমস্যা জলাবদ্ধতা, দীর্ঘদিনেও যা নিরসন হয়নি। পৌরসভার রাস্তা-ঘাট,সরকারী দপ্তর,স্কুল-কলেজ এমনকি বস্তভিটায় সামান্য বৃষ্টিতেই হাটু পানিতে তলিয়ে যায়। এর ফলে স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা দুভোর্গে পরে প্রতিনিয়ত। রাস্তায় পানি জমে এমন অবস্থার সৃষ্টির হয় দেখে বুঝার উপায় নাই যে এটি রাস্তা না পুকুর। অফিস পাড়ায় পানি জমে জলাবদ্ধতার ফলে সেবা নিতে আসা মানুষগুলো পরে চরম বেকায়দায়।এ দূভোর্গের যেন কোন পরিসীমা নেই। দেখার যেন কেউ নেই। ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকা এর মূল কারন বলে জানান পৌরবাসী।
এলাকাবাসীর দাবীর মুখে ২০০১ সালে ইউনিয়ন থেকে পৌরসভা ঘোষনা হয়।কয়েক দফা মেয়র পরিবর্তন হলেও পৌরবাসীর ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটেনি। নাগরিক সুবিধা না থাকলেও প্রতি বছর গুনতে পৌর করের টাকা। এ যেন মরার উপর খরার ঘা। বর্ষা মৌসুমের শুরু থেকেই পৌর শহর সহ প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় হাটু পানিতে নিমজ্জিত হয়ে থাকে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য এলাকাগুলো হলো মুদিপাড়া,সবুজপাড়া,কলেজপাড়া,থানা সংলগ্ন সড়ক,কাচারীপাড়া, মাথাভাঙ্গা মুন্সিপাড়াসহ প্রায় প্রতিটি এলাকা এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ৯টি ওয়ার্ডে পৌরসভাটিতে প্রায় লক্ষাধিক লোকের বসবাস। প্রতিটি ওয়ার্ডে বসসবাসরত সাধারণ মানুষের দাবী সকল প্রকার নাগরিক সুযোগ সুবিধাসহ ড্রেনেজ ব্যবস্থার। কলেজপাড়ার মাসুদ,মুদিপাড়ার দীনবন্ধু,মুন্সিপাড়ার রেজাউল ও থানা এলাকার হামিদুল হক জানান,গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে আমাদের এলাকায় হাটুপানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ঘর থেকে বের হতে পারছি না। তারা আরও জানান পানি জমে থাকে দিনের পর দিন। এতে করে পানি পচেঁ গিয়ে দুর্গন্ধ ছাড়াচ্ছে এবং মশার উপদ্রপও বেড়ে গেছে।
এ ব্যাপারে সাবেক মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলুর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমি মেয়র থাকা অবস্থায় রাস্তা-ঘাটের জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য সার্বখানিক কাজ করেছি,এক সময় জিরো পয়েন্ট এবং ট্রাফিক মোড় কাদায় নির্মজ্জিত ছিলো তা অপসরণ করে নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করেছি। বর্তমান মেয়র সে ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেনি। সেই জন্য দুভোর্গ পোহাচ্ছে পৌরবাসী।
বর্তমান মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল চৌধূরী কমেট জানান,জলাবদ্ধতা নিরসনে আমি ৮০ভাগ কাছ ইতিমধ্যে শেষ করেছি। বাকী কাছ সমাপ্ত হলো পৌরবাসীর দীর্ঘদিনের দুভোর্গ লাঘব হবে। তিনি আরও বলেন,আধুনিক পৌরসভা নিমার্ণে আমাদের অনেক মেগা পরিকল্পনা রয়েছে।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।