দীর্ঘদিন পর রাস্তা পেল কিশোরগঞ্জ মহিলা কলেজ

কিশোরগঞ্জ নির্বাচিত খবর শিরোনাম শীর্ষ খবর সারাদেশ


কিশোরগঞ্জ(নীলফামারী)সংবাদদাতাঃ
দীর্ঘ প্রায় একযুগ পর কলেজের যাতায়াতের রাস্তার জমি বুঝে পেল নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার মহিলা কলেজ। বুধবার সকাল ১১ টার দিকে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের সহযোগিতায় কলেজে যাতায়াতের রাস্তার জমি কলেজ কতর্পক্ষকে বুঝে দেয়া হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এবং মহিলা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা আফম শাওনুল হক শাওন, কলেজ অধ্যক্ষ মাহফুজার রহমান, রাস্তার জমির মালিক মোকলেছার রহমান, কিশোরগঞ্জ প্রেসক্লাবের আহবায়ক আবু হাসান শেখ তনা, সাবেক সভাপতি ফজল কাদির, দৈনিক ইত্তেফাক সংবাদদাতা এবং মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম কিশোরগঞ্জ উপজেলার আহবায়ক শামীম হোসেন বাবু, দৈনিক খোলা কাগজের প্রতিনিধি মাফি মহিউদ্দিন, অথর্নীতির মিজানুর রহমান, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ মহিলা কলেজের সকল শিক্ষক প্রমুখ।
কিশোরগঞ্জ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মাহফুজার রহমান জানান, কিশোরগঞ্জ উপজেলার নারীদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করার জন্য কিশোরগঞ্জ উপজেলার সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আফম শাওনুল হক শাওন ২০০৪ সালে একমাত্র মহিলা কলেজটি প্রতিষ্টা করেন। পরে ২০১২ সালে কলেজটি একাডেমিক স্বীকৃতি লাভ করে। সবর্শেষ বতর্মান সরকারের আমলে ২০২০ সালে কলেজটি এমপিও হয়। কলেজের বতর্মান শিক্ষক সংখ্যা ৩০ জন। ছাত্রী সংখ্যা ৪০০ জন। তিনি আরো জানান, কলেজটি প্রতিষ্টার পর থেকে কলেজের ভিতরে যাতায়াতের কোন রাস্তা ছিলনা। আমরা সকল শিক্ষক টাকা দিয়ে স্থানীয় জমির মালিক মোকলেছার রহমানের কাছে কলেজে যাতায়াতের রাস্তার ৩ শতক জমি কেনার জন্য বায়না প্রদান করছিলাম। কিন্তু দীঘর্দিন থেকে সেই জমি বুঝে পাচ্ছিলামনা। সবর্শেষ কিশোরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সকল সদস্য এবং স্থানীয়দের সহায়তায় জমির মালিক আড়াই শতক জমি কলেজের রাস্তার নামে সাব কবলা মুলে রেজিষ্টি করে দিতে রাজি হয়েছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।